গোদাগাড়ীতে বন্দুকযুদ্ধে নিহত একজন

  • আপডেট টাইম : ২৫ জুন ২০২১, ১০:৩৩ অপরাহ্ণ
  • /
  • 57 বার পঠিত

তন্ময় দেবনাথ বিভাগীয় প্রধান রাজশাহী::-ßরাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার কাকনহাটে চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা মামলার আসামি পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার(২৪)জুন রাত দুইটার দিকে ললিত নগর উপজেলার এ ঘটনা ঘটে। নিহত ঐ ব্যক্তির নাম শামীম হোসেন (২৪)। রাজশাহী জেলার গোদাগাড়ি উপজেলার বাউটিয়া গ্রামের ইসলামের ছেলে। এছাড়া এলাকায় কুখ্যাত চোর হিসেবে পরিচিত শামীম। রাজশাহী জেলা পুলিশের মুখপাত্র ইফতেখার আলম এসব তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, গতকাল ২৪শে জুন রাতে ললিত নগরে পুলিশ টহল ডিউটি পালন করছিল। এ সময় শামীম ও তার সঙ্গীরা মিলে পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করতে থাকে । পুলিশ আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলিবর্ষণ করে। ঘটনাস্থল থেকে শামীমের সঙ্গীরা পালিয়ে গেলেও শামীমকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। তিনি আরো জানান এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল, তিন রাউন্ড গুলির খোসা, একটি গুলি ও একটি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। পরে শামীমকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয় চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, ঘটনাস্থল থেকে যে মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে। সেই ফোনটি কাকনহাটে ঘটে যাওয়া ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডের শিকার হওয়া পরিবারের কারও। ফলে পুলিশ ধারণা করছে ওই ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডের সাথে শামীম জড়িত ছিল।গোদাগাড়ি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম আরবি টিভি নিউজ এর বিভাগীয় প্রধান কে জানান গত কিছুদিন পূর্বে কাকনহাটে চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণ করে হত্যার পর বাড়ির পাশে খড়ের গাদার নিচে রেখে দেওয়া হয়েছিল। পরে সেখান থেকে মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। সেই দিন সেই বাসা থেকে দুইটি ফোন হারিয়ে যায়। নিহত শামীম এর কাছ থেকে সেই ফোন পাওয়া গেছে। সেহেতু শামীমও ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত থাকতে পারে বলে ধারণা করছে পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *