রথযাত্রা অনুষ্ঠানের তাৎপর্য 

  • আপডেট টাইম : ১৪ জুলাই ২০২১, ০৭:০৬ অপরাহ্ণ
  • /
  • 65 বার পঠিত
♦রথযাত্রা হিন্দু সমাজের একটি বাৎসরিক ধর্মীয় অনুষ্ঠান।
♦প্রতিবছর আষাঢ়মাসের শুক্লপক্ষের ২য়া তিথিতে রথযাত্রা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়।
♦এর সাতদিন পরে শুক্লপক্ষেরই দশমী তিথিতে ফিরতি রথ অনুষ্ঠিত হয়।একে বলে উল্টোরথ
♦রথযাত্রা অনুষ্ঠানের পক্ষাধিকাল পূর্বের পূর্ণিমা তিথিতে উপাস্য দেবতার স্নানযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়।
♦বিপুল লোকের সমাবেশে মহাসমাবেশে ও ধুমধামের মধ্যে রথযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়।
♦স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন জাগে, যে মূর্তি নিয়ে এই রথযাত্রা সেই রথারোহী দেবতা কে—–?
♥পুরাণে বলা আছে,কোন এক সময়ে, বলরাম ও কৃষ্ণ যখন দ্বারকায় বাস করেছিলেন তখন এক মহান সূর্যগ্রহণ হয়েছিল,যা সাধারনত কল্পক্ষয়ের সময় সংঘটিত হয়ে থাকে।পূর্ব হতে এই গ্রহণের কথা অবগত হয়ে পূন্য অর্জনের জন্য ভারতবর্ষের সকল স্থান হতে বহু মনুষ্য স্যমন্তক, পঞ্চক নামক পবিত্র স্থানে সমাগত হয়ে ছিলেন।
♦ভাগবত বলেছেন ——নিঃক্ষত্রিয়াং মহীং কুর্বন্ রামঃ শস্ত্রভৃতাং বরঃ।নৃপাণাং রুধির -ওঘেন যত্র চক্রে মহাহ্রদান।।ঈজে ভগবান্ রামঃ যত্র অস্পষ্ট -অপি কর্মণা। লোকং সংগ্রাহয়ন-ঈশঃ যথা -অন্যঃ অঘ অপনুত্তয়ে।।
♦স্থানভেদে ভগবান্ দুভাবে আনন্দ উপভোগ করেন-স্বকীয় ও পরকীয়।দ্বারকায় মহিষীগনের সাথে ঐশ্বর্যমন্ডিত যে লীলাবিলাস তা স্বকীয় লীলারস;আর ব্রজে ব্রজগোপাঙ্গনাদের সাথে যে মাধুর্যমন্ডিত লীলা রস তা পরকীয় লীলারস।যে নিভৃতস্থানে অবস্থান করে শ্রীশ্রীজগন্নাথদেব মহালক্ষীর সাথে অন্তরঙ্গ মিলন বিলাসে স্বকীয় রস আস্বাদন করছিলেন, তার অবসান ঘটিয়ে রথারুঢ় হয়ে ভগবান পরকীয় রসাস্বদনের জন্য গুন্ডিচারূপী বৃন্দাবনের উদ্দশ্যে যাত্রা করেছেন। এটাই জগন্নাথদেবের রথযাত্রা।
♦রথযাত্রার উৎস সম্বন্ধে নানা কাহিনী প্রচলিত।একটি ঘটনার বর্ণনা করা হল—-
একদিন শ্রীকৃষ্ণ একটি গাছের ডালে বসে বিশ্রাম নিচ্ছিলেন।জরা নামক এক শিকারি ব্যাধ দূর থেকে শ্রীকৃষ্ণের লাল পা দুটি দেখে, লাল পাখি ভ্রমে, তা শরবিদ্ধ করলেন।ফলে শ্রীকৃষ্ণ মাটিতে পড়ে যান।আহত শ্রীকৃষ্ণকে দেখেন জরা ব্যাধ আতঙ্কিত হয়ে পড়েন।শ্রীকৃষ্ণ তাকে আশ্বস্ত করে বলেন যে,এই ঘটনা পূর্বনির্ধিত।পূর্বজনমের কর্মের ফলেই এরুপ ঘটেছে।এরপরই শ্রীকৃষ্ণ দেহত্যাগ করেন।এ আখ্যানে পরবর্তীতে শ্রীকৃষ্ণের দেহ সতকারে বহুবিধ ঘটনা ঘটে।মূলত এ ঘটনার প্রেক্ষাপটই রথযাত্রা।(সংগৃহীত)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *